Contact For add

Thu, Jul 20 2017 - 1:39:53 PM BDT প্রচ্ছদ >> ভ্রমন

Panam city can visit!ঘুরে আসতে পারেন পানাম নগর !

ঘুরে আসতে পারেন পানাম নগর !

এস এম খালিদ হোসেন , বাগেরহাট :


বাংলা’র ইতিহাস ও সংস্কৃতির ভান্ডার অসীম। চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে তার প্রমাণ। তেমনই ইতিহাসের একটি অংশ সোনারগাঁও এর পানাম সিটি যা হারানো নগরী নামেও পরিচিত। এখানে বেশ কিছু পুরানো দালানকোঠা রয়েছে যা বাংলা’র বার ভুঁইয়াদের ইতিহাসের সাথে সম্পৃক্ত।

জানা যায়, ১৫ শতকে ঈসা খাঁ স্থাপিত প্রথম বাংলা’র রাজধানী ! যা বর্তমানে নারায়নগঞ্জ জেলার অন্তর্গত সোনারগাঁও এ অবস্থিত এ নগরী প্রায় ৪০০ বছর আগে গড়ে ওঠে তাঁত ব্যবসায়ীদের বসতির মধ্য দিয়ে। বাংলা’র তাঁত ব্যবসার মূল কেন্দ্রবিন্দু ছিল এই পানাম নগরী।

 

 

এখান থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে এই ব্যবসা পরিচালনা করা হতো। বাংলা’র মসলিনসহ অন্যান্য তাঁত শিল্পের প্রচার ও প্রসার সুতিকাগার বলা হয় এই পানাম নগরকে। একপাশে শীতলক্ষা আর একপাশে মেঘনা নদী বেষ্টিত সোনারগাঁও এর এই  স্থান মসলিনসহ অন্যান্য তাঁত ব্যবসার জন্য বিখ্যাত ছিল। পরে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি এখানে নীল ব্যবসা পরিচালনা করতো।
পানাম নগর স্থাপন পরিকল্পনায় মুন্সিয়ানার ছাপ পাওয়া যায়। দুটি খাল বেষ্টিত এ নগরী ছিল গেট দ্বারা আবদ্ধ। সন্ধ্যার পূর্বেই গেটগুলো বন্ধ করে দেয়া হতো। ফলে নিরাপত্তার কোনো ঘাটতি ছিল না এ নগরীতে।  ৫ মিটার প্রশস্ত ও ৬০০ মিটার দীর্ঘ একটি রাস্তার দু’পাশে ৫২ টি একতলা, দোতলা ও তিনতলা বাড়ির সমন্বয়ে এ নগরী।

বাড়িগুলোর  স্থাপত্যশৈলিতে ইউরোপীয় শিল্পরীতির সাথে মোঘল শিল্পরীতির সংমিশ্রণ লক্ষ্য করা যায়। প্রতিটি বাড়ির নির্মাণকৌশল, কারুকাজ, রঙের ব্যবহারে উদ্ভাবনী কৌশল লক্ষণীয়। অট্টালিকা, সরাইখানা, মসজিদ, মন্দির, গোসলখানা, খাজাঞ্চিখানা, কূপ, টাকশাল, দরবার, প্রমোদালয় ইত্যাদি নির্মান করা হয় এ নগরীতে।  মূলত উচ্চ মধ্যবিত্ত শ্রেণির ব্যবসায়ীরা বাস করতে এখানে।


নগরীটি বর্তমানে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রাধীন। কিছু কিছু ভবন সংস্কার করা হয়েছে। প্রতিদিনই বিপুল সংখ্যক দেশি-বিদেশী পর্যটক আসছেন এই পানাম সিটি দেখতে। এখানকার ইতিহাস জানতে। আপনিও ঘুরে আসতে পারেন সপরিবারে। পানাম নগরে প্রবেশের জন্য বাংলাদেশের নাগরিকদের ১৫ টাকা দিয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে হয়। আর বিদেশী পর্যটকদের জন্য টিকিটের মূল্য ১০০ টাকা।


যেভাবে যাবেন:

ঢাকা থেকে বাসযোগে সোনারগাঁও এর মোগড়াপাড়া বাসস্ট্যান্ডে নেমে সিএনজি, ইজিবাইক বা রিকশা নিয়ে পানাম নগর যাওয়া যায়। বাস ভাড়া নিবে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। আর মোগড়াপাড়া স্ট্যান্ড থেকে পানাম নগরী পর্যন্ত সিএনজি ভাড়া জনপ্রতি ২০-২৫ টাকা। আর যাদের ব্যক্তিগত গাড়ি আছে তারা গাড়ি নিয়ে যেতে পারেন। ওখানে গাড়ি পার্কিং এর সুবিধা পাবেন।


তো সময় নিয়ে পরিবারকে সাথে নিয়ে ঘুরে আসুন আজই পানাম নগর। জানুন আমাদের ইতিহাস ও সংস্কৃতি।


 



Comments